Home / উন্মুক্ত পাতা / লোহাগাড়া উপজেলায় ইটভাটা স্থাপনে মানা হচ্ছে না নিয়ম 

লোহাগাড়া উপজেলায় ইটভাটা স্থাপনে মানা হচ্ছে না নিয়ম 

বিশ্ব পরিবেশ দিবসে পরিবেশ দূষণ রোধকল্পে লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের নোয়ারবিলা এলাকার মানুষের পক্ষে লিখছেন-

মোহাম্মদ আফতাব উদ্দীন মোরাদ


ইটভাটার কালো ধোঁয়ায় নষ্ট হচ্ছে ফসল ও ফসলি জমি এবং কাঁটা হচ্ছে পাহাড়। লোহাগাড়া উপজেলায় স্থাপন হচ্ছে নতুন নতুন ইটভাটা। যার অধিকাংশ অবৈধ ভাবে করা হচ্ছে মানা হচ্ছে না নিয়ম নীতি। যার ধাঁরাবাহিকতায় লোহাগাড়া উপজেলার চরম্বা ইউনিয়নের নোয়ারবিলা এলাকায় স্থাপন করা হচ্ছে অবৈধ ইটভাটা। যার খতির ফল ভোগ করতে হবে পচ্ছিম মাইজবিলা, পূর্ব মাইজবিলা, রাজঘাটা, ফকির কিল, নোয়ারবিলা সহ ৫ গ্রামের অন্তত ২০ থেকে ৩০ হাজার মানুষের। বর্তমানে লোহগাড়া উপজেলায় যেভাবে ইটভাটা চলছে তা থেকে পরিত্রাণ পেতেই হবে। তা না হলে লোহাগাড়ায় স্বাস্হ্য ও পরিবেশের ব্যাপক বিপর্যয় ঘটবে। ইটভাটা স্থাপনে অাইন মেনে চলতে হবে অাইন অমান্যকারীর বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্হা নেয়া হউক। ব্যবসা করা ভাল তবে সেই ব্যবসা যদি জনগণের অকল্যাণের জন্য হয় তাহলে সে সমস্ত ব্যবসা প্রতিষ্টানের তালিকা করে যথাযত ব্যবস্হা নেয়া হউক ।

লোহাগাড়ায় বর্তমানে যেই গুলো ইটভাটা হচ্ছে তার মধ্য ২০ থেকে ২৫ টির কোনোটিরই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেই। এসব ইটভাটার কারণে পরিবেশদুষণের পাশাপাশি কৃষি উৎপাদনেরও প্রভাব পড়বে। লোহাগাড়ার চরম্বা ইউনিয়নে

যেভাবে অপরিকল্পিত ইটভাটা নির্মাণ হচ্ছে তাতে ভবিষ্যতে কৃষি জমি কমে যাবে এবং

খাদ্যাভাব দেখা দেবে । কৃষকদের ফসল ও পাহাড় এবং পাহাড়ের গাছ বাঁচাতে হলে অবৈধভাবে স্থাপিত এই ইটভাটাকে সরাতে হবে ।

ইট প্রস্তুত ও ইটভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ অাইন ২০১৩ অনুযায়ী অাবাসিক এলাকার এক কিলোমিটারের মধ্যে ও কৃষিজমিতে ইটভাটা স্থাপন নিষিদ্ধ অথচ বাস্তবে দেখা যাচ্ছে তা মানা হচ্ছে না । একটি ইটভাটার জন্য লাখ লাখ টাকার ফসলের ক্ষতি এবং পাহাড় ও পাহাড়ের গাছ কাঁটা হচ্ছে অথচ ইটভাটা সরানোর ব্যাপারে স্হানীয় প্রশাসনের কোনো উদ্যোগ নেই এটা কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয় ।

এখন লোহাগাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এই সমস্যা সমাধানে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে । শুধু জরিমানা অাদায় বা কৃষকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না । কৃষিজমিতে অবৈধভাবে গড়ে ওটা এই ইটভাটাকে সরিয়ে ফেলতে দ্রুত উদ্যেগ নিতে হবে শুধু তাই নয় অবৈধভাবে ইটভাটা গড়ে তোলার জন্য এর মালিকের বিরদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। অার যারা কৃষি জমি পেতে ইটভাটার মালিক কে সহযুগিতা করেছে সামনে এবং পিছনে তাদের সবাইকে অাইনের অাওতায় অানা হউক ।

শুনেছি ইটভাটার মালিক নাকি অনেক প্রভাবশালি তারা কি প্রশাসনের থেকেও প্রভাবশালি

না কি প্রশাসন তাদের কাছ থেকে

মোটা অংকের টাকা খেয়ে নিরব ভূমিকা পালন করছে ।

লোহাগাড়া প্রশাসনের কাছে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি এই সুন্দর চরম্বার পরিবেশ বাচাতে অবিলম্বে নোয়ারবিলা এই অবৈধ ইটভাটা স্থাপন বন্ধ করার জন্যে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করুন ।

সবশেষে বলতে চাই-

ঐক্যবদ্ধ ভাবে পরিবেশ রক্ষার জন্য প্রতিবাদ করুণ।

About Tamzid20

Check Also

সংস্কৃতির আত্মানুসন্ধানে ১লা বৈশাখের অগ্রযাত্রা

নজরুল ইসলাম তোফাঃ বাংলা পঞ্জিকার ১ম মাস বৈশাখের ১ তারিখেই হয় ‘পয়লা বৈশাখ’ বা ‘পহেলা …

পরিবারই হউক মা-বাবার বৃদ্ধাশ্রম

“বৃদ্ধাশ্রম” যেখানে ঠাঁই পান বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা। বৃদ্ধাশ্রম মূলত পরিবার থেকে আলাদা একটা ঘর। যেখানে হাসি, খুশিতে …

স্বাধীনতা এ শব্দ‌টিঃ রুহু রু‌হেল ‌

স্বাধীনতা শব্দ‌টি‌তে লে‌গে আ‌ছে লালিমা র‌ঙিন রক্ত দীর্ঘ নয় মাস বু‌কের র‌ক্ত ঢে‌লে পে‌য়ে‌ছি স্ব‌দেশ- …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *